ল্যাপটপ পানিতে ভিজে গেলে কি করবেন সহজ উপায়

আপনার ল্যাপটপের  ওপর পানি পড়লে বা কোনোভাবে ল্যাপটপ পানিতে ভিজে গেলে আপনার আতঙ্কিত হওয়া স্বাভাবিক। আপনি যদি এমন পরিস্থিতির সামনাসামনি হন তাহলে ভইয় পাবেন না, কারণ আজকে আমরা আপনাকে জানাব কিভাবে এরকম পরিস্থিতির মোকাবেলা করতে হয়।

সৌভাগ্যক্রমে, ল্যাপটপের পানিজনিত ক্ষতি মেরামতের জন্য কিছু সহজ উপায় রয়েছে। যদি আপনি খুব দেরি না করে সঠিক পদক্ষেপ নেন, তাহলে আপনার মূল্যবান ছবি, মেসেজ, মুভি কিংবা মিম উদ্ধার করা যাবে!

পানি ঢুকে গেলেই আপনার ল্যাপটপ শেষ হয়ে গেল তা কিন্তু নয়। এই পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করে আপনার ডেটা পুনরুদ্ধার করা যাবে!

 

প্রথম কাজ ল্যাপটপ বন্ধ করা

পানির  সংস্পর্শে আসার সঙ্গে সঙ্গে আপনার ল্যাপটপ টি বন্ধ করুন। কোনভাবেই পানি যেন বিদ্যুতের সংস্পর্শে না আসে তা নিশ্চিত করুন। পানি ঢোকার কারনে ল্যাপটপের যে ক্ষতি হয় তা মেরামতের ঝুঁকি মোটামুটি কম কিন্তু  বিদ্যুতের সংস্পর্শে পানি আসা মারাত্মক ঝুঁকি তৈরি করবে। সঙ্গে সঙ্গে ল্যাপটপ বন্ধ করে সম্ভাব্য আরও ক্ষতি এবং বিপদ থেকে বাঁচুন।

***অতি গুরুত্বপূর্ণ সতর্কবাণী!!!! পরবর্তী পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করার আগে আপনার ল্যাপটপটি আবার চালু করবেন না! এটি আরও ক্ষতি করতে পারে এবং সার্কিট জ্বালিয়ে দিয়ে আপনার ফাইল এবং হার্ডওয়্যারকে ঝুঁকিতে ফেলতে পারে।

আপনার ল্যাপটপ থেকে বিচ্ছিন্নযোগ্য আইটেমগুলি সরান

আপনার ল্যাপটপ বন্ধ করার পরের ধাপটি হল ডিভাইসের সাথে সংযুক্ত সমস্ত সম্ভাব্য বিচ্ছিন্নযোগ্য আইটেমগুলি সরিয়ে ফেলা। এই ধরনের জিনিসগুলির মধ্যে রয়েছে মাউস, কীবোর্ড, প্রিন্টার এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটারি। পানি, চা, কফি ইত্যাদি তরল বস্তু দ্বারা সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয় ব্যাটারির। তাই সবার আগে যে জিনিষটি বিচ্ছিন্ন করবেন সেটি হল ব্যাটারি। ল্যাপটপ থেকে নিরাপদে ব্যাটারি সরিয়ে এবং এটি একটি শুষ্ক জায়গায় রাখুন। ব্যাটারি একটি সংবেদনশীল জিনিস। এটির আশেপাশে পানি বা  তরল পদার্থ রাখা যাবে না।

সুতরাং ঝুঁকি নেবেন না, ল্যাপটপের ওয়াটার ড্যামেজ সারাতে শাট ডাউনের সাথে সাথেই 

নিরাপদে ব্যাটারি বের করে ফেলুন।

সাবধানে পানির সংস্পর্শে আসা জায়গাগুলি শুকিয়ে ফেলুন

 

এবার আপনি ল্যাপটপটি আস্তে আস্তে কাপড় ছুইয়ে ছুইয়ে শুকানো শুরু করুন। কাজটি অত্যন্ত সাবধানে করতে হবে যেন ল্যাপটপের কোনো জটিল অংশের ক্ষতি যাতে না হয়।

***গুরুত্বপূর্ণ!!! কখনও রোয়া বা ফাইবারযুক্ত কাপড় ব্যবহার করবেন না। ফাইবার জড়িয়ে গিয়ে আপনার ডিভাইসের আরও ক্ষতি হতে পারে এবং অবস্থা আরও খারাপ করে তুলতে পারে। যেসব স্থানে কাপড়  পৌছায় না সেসব জায়গা শুকানোর জন্য ভাল টিপ হল কটন ইয়ারবাড ব্যবহার করা।

আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম হল, হেয়ার ড্রায়ারের মতো মেশিন দিয়ে জোরপূর্বক গরম বাতাস ব্যবহার না করা। গরম বা তাপ ল্যাপটপের ক্ষতি করতে পারে। আপনি যদি সত্যিই ব্লোয়ার ব্যবহার করতে চান তাহলে নিশ্চিত করুন যে এটি কম চাপ, কম গরম এবং আপনার ডিভাইসের আরও ক্ষতি করবে না।

জলে ক্ষতিগ্রস্ত আপনার ল্যাপটপটি শুকান, তবে অবশ্যই নিরাপদ পন্থা অবলম্বন করবেন!

ল্যাপটপটিকে উল্টো করে রাখুন

তাঁবুর মতো উল্টো ‘V’ আকারে ডিভাইসটিকে দাঁড় করান। এর মানে ল্যাপটপ উল্টো হয়ে দাঁড়াবে এবং স্ক্রিন এবং কীবোর্ড নিচের দিক ফেস করবে। ল্যাপটপের নীচে একটি তোয়ালে বা কাপড় রাখুন যাতে আর্দ্রতা বা পানির ফোটা শোষণ করতে পারে। কাপড় ছুইয়ে সম্ভবত সবকিছু নাও শুকাতে পারে। অতিরিক্ত সাবধানতার জন্য এই পন্থা অবলম্বন করবেন।

ল্যাপটপ রোদে দেবেন না। শুকানোর প্রক্রিয়াটিকে দ্রুত করার জন্য আপনার কাছে এটি ভাল উপায় বলে মনে হতে পারে, কিন্তু দয়া করে এই ঝুঁকি নেবেন না। রোদের তাপ ডিভাইসের ক্ষতি করতে পারে। 

২৪ ঘণ্টার জন্য ল্যাপটপকে ‘তাঁবু’ সেট আপে রাখুন। যদিও আমরা জানি যে, আপনার জন্য ল্যাপটপ ছাড়া এটি একটি দীর্ঘ সময়, কিন্তু সমস্ত পানি শুকানোর জন্য অপেক্ষা করা জ্রুরি। আপনি যদি যথেষ্ট সময় অপেক্ষা না করেন, আপনি ডিভাইসটি পুনরায় চালু করার পরে আরেকটি  শর্ট সার্কিট হওয়ার ঝুঁকি থেকেই যাবে, যার ফলে পারমানেন্ট ক্ষতি হতে পারে।

 

পরিশেষে, আসুন আমাদের ল্যাপটপের রিপেয়ার কেমন হল পরীক্ষা করি

উপরের সমস্ত ধাপ অনুসরণ করার পরে এবং আপনার যদি মনে হয় আপনি আর্দ্রতা শুকানোর জন্য যথেষ্ট অপেক্ষা করেছেন, তাহলে এবার ব্যাটারি এবং অন্যান্য ডিভাইসগুলিকে আবার প্লাগ ইন  করুন এবং ল্যাপটপটি চালু করুন।

যদি সবকিছু পরিকল্পনা অনুযায়ী হয়, তাহলে আপনার ল্যাপটপটি চালু হওয়া উচিত এবং কাজ করা উচিত, যেমন এটি পানিতে ভেজার পূর্বে ছিল।

আপনার ক্ষতিগ্রস্ত ল্যাপটপটি ঠিক করার জন্য এই নিবন্ধে আলোচনা করা ধাপগুলি অনুসরণ করুন, কিন্তু যদি ডিভাইসটিতে  এরপরও  ত্রুটি থাকে, তাহলে এক্সপার্ট বা  বিশেষজ্ঞদের সাথে  যোগাযোগ করুন।

Leave a Reply

1 × 2 =

DMCA.com Protection Status
error: Content is protected !!