আসল শাওমি ফোন চেনার উপায়

আসল শাওমি ফোন চেনার উপায় | অরিজিনাল শাওমি চেনার উপায়

আসল শাওমি ফোন চেনার উপায় গুলো খুঁজে দেখতে গেলে আপনাকে প্রথমে যে বিষয় গুলো দেখতে হবে তাহলো শাওমি ফোন এর কোয়ালিটি এবং পারফামেন্স। সুতরাং আপনি আমার দেখানো ট্রিক গুলো পরীক্ষা করে আসল শাওমি ফোন চেনার উপায় জনাতে পারেন। খুব সহজেই আপনার শাওমি ফোন টি আসল না নকল বুঝতে পারবেন।

আসল শাওমি ফোন চেনার উপায় :

আপনার হাতের শাওমি ফোন টি আসল না নকল কিংবা কোথায় তৈরি হয়েছে, বিষয়টি খুব সহজেই জানতে পারেন তাহলো মোবাইলের IME কোড চেক করার মাধ্যমে। IME হলো একধরনের কোড যার মাধ্যমে আপনার শাওমি ফোনটির International Mobile Identification Number জানতে পারেন। International Mobile Identification Number দ্বারা মোবাইলের অনেক কিছু জানা যায় IME হলো মোবাইলের আলাদা একটা প্রাইভেট নাম্বার।

আসল শাওমি ফোন চেনার উপায় Xiaomi 3 Phone
আসল শাওমি ফোন চেনার উপায়

আসল শাওমি ফোন চেনার উপায়:

আপনার মোবাইলে টাইপ করুন *#06# চাপুন সাথে সাথে ১৫ ডিজিটের International Mobile Identification Number চলে আসবে। তারপর আপনি বিভিন্ন ভাবে কোডটি পরিক্ষা করে আসল শাওমি ফোন সনাক্ত করতে পারেন।

প্রথমত: এখানে IME এর ৭ম এবং ৮ম নাম্বারটি ভালোভাবে দেখুন। যদি ৭ম নাম্বরে এবং এবং ৮ম নম্বরে ০২ বা ২০ হয় সে ক্ষেত্রে শাওমি ফোন টির কোয়ালিটি খুব খারাপ, ০৮ বা ৮০ হয়ে থাকে তবে শাওমি ফোন টির কোয়ালিটি হবে মানসম্মত, ০১ বা ১০ হলে শাওমি ফোন টি ভালো, ০০ হলে শাওমি ফোন প্রধান কারখানার তৈরি এবং ১৩ হলে শাওমি ফোন টি কোয়ালিটি খুবই খারাপ এবং এটি কোয়ালিটি খারপ বলে রেডিয়েশন বেশি হবে ফলে আপনার স্বাস্থ্যের জন্যও অধিক মাত্রায় ক্ষতিকর হতে হবে।

দ্বিতীয়ত: আপনি আনলাইনে বিভিন্ন ভাবে IME ব্যবহার করে আসল না নকল ফোন তা সনাক্ত করতে পারেন। অথবা শাওমি ফোন টির আসল তথ্য গুলো আপনার নিজের ফোনের সাথে মিলিয়ে নিতে পারেন। নকল শাওমি ফোন টিতে কখনো আসল শাওমি ফোন এর মত পারফামেন্স থাকবে না।

শাওমি মোবাইল ভেরিফিকেশন অ্যাপ:

(Mi Verification App Method) বর্তমানে মার্কেটে নকল মোবাইলের ছড়া-ছড়ি তাই আসল শাওমি মোবাইল কোম্পানি তাদের মোবাইলের জন্য অফিসিয়ালি একটি মোবাইলে অ্যাপ তৈরী করেছে যা আপনি মোবাইল কোনার আগে আপনার মোবাইলে শাওমি মোবাইল অ্যাপটি ডাউনলোড করে সেটআপ করে নিবেন। আপনি যদি অ্যাপটি না পান তাহলে গুগলে প্রথমে সার্চ দিয়ে দেখতে পারেন।

Mi Verification App লিখে সার্চ দিবেন। তাহলে চলে আসবে আশা করছি। তারপর একটি কম্পিউটারের মাধ্যমে https://jd.mi.com/ লিংকে গিয়ে আপনার মোবাইলের বারকোডটি Mi Verification App দিয়ে স্ক্যান করবেন। স্ক্যান করলে কিছু ক্ষণ পর আপনার কম্পিউটারে ভেরিফিকেশন নোটিফিকেশন দেখতে পাবেন। এভাবে আপনার শাওমি ফোন টি পরীক্ষা করতে পারেন।

Mi Verification App Method

ফোনের ব্রেঞ্চমার্ক পরীক্ষা:

(Benchmark test) আপনার শাওমি ফোন টির Benchmark test AnTuTu বা GeekBench পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। আপনার পরীক্ষায় যদি আপনার কাঙ্খিত ফলাফল না আসে তবে ধরে নিতে হবে আপনার শাওমি ফোন এ ভেজাল রয়েছে। Benchmark test এর গড় স্কোর গুগলে সার্চ দিয়ে দেখতে পারেন। তারপর রেজাল্ট আপনার শাওমি ফোন এর সাথে মিলিয়ে দেখে নিতে হবে।

যেমন- Original Xiaomi Redmi Note 5Ai Phone ফোন ভার্সনে আপনার স্কোর আসবে এক লক্ষ  বিশ হাজার নয়শত কাছা-কাছি হতে পারে। মনে করেন আপনার সদ্য কেনা শাওমি ফোন এ Benchmark test পরীক্ষা করে উপরের রেজাল্ট নাপান, তাহলে বুঝতে হবে আপনার শাওমি ফোন টিতে ভেজাল আছে।

মোবাইলের ভার্সন পরিক্ষা:

(Cheek the Miui Version) সবসময় দেখা যায় নকল মোবাইল ডিভাইস গুলোতে আলাদা ভাবে Rom থাকে। অথার্ৎ আমরা যাকে বলি ফোন মেমোরী। সুতরাং আপনি প্রথমেই আপনার Rom দেখে নিন। আপনি যদি বুঝতে না পারেন তাহলে ইন্টারনেটে সার্চ দিন তাহলে খুব গুগলে বিভিন্ন লিং পাবেন। তার মধ্যে এটা হলো http://en.miui.com/down;pad.html এই লিংকের মাধ্যমে আপনার শাওমি ফোন এর রম ভার্সন পরীক্ষা করে নিতে পারেন।

শাওমি কোম্পানির অনথেনটিকেশন:

(Authentication Label Method) আপনি যখন আপনার শাওমি ফোন টি ক্রয় করবেন। শাওমি ফোন টির বক্সে সাথে যে লেবেল নাগানো থাকে, যেখানে IME সহ একটি সিকিউরিটি স্টিকার থাকে যার সাথে 20 ডিজিটের একটি পিন সংখ্যা থাকে। যা আপনাকে ক্র্যাচ করে উঠিয়ে অনলাইনে ভেরিফাই করতে হবে। তবে সব শাওমি ফোন এর সিকিউরিটি কোড থাকে না।

কিন্তু IME কোড থাকে, আপনি যদি মনে করে IME দিয়ে আপনার ফোনটি ভেরিফাই করবেন তাহলে নিচের লিংক এ প্রবেশ করে সহজেই IME Authentication ভেরিফাই করতে পারেন। https://www.mi.com/global/verify/#/en/tab/imei

শাওমি ফোন সিস্টেম ভেরিফাই:

(Install Stock Miui Rom) কেউ যদি নকল ফোনে অফিশিয়াল স্টক Rom ব্যবহার করতে যান তাহলে তা ব্রিক হয়ে যাবে। কারণ হলো আপনি যখন নকল ফোনে অফিসয়াল Rom ইনস্টল করতে যাবেন তখন আপনার মোবাইলের সিস্টেমকে বিভিন্ন ভাবে চেক করে দেখবে। তার মধ্যে হলো ডিভাইস কোড নাম, হার্ডওয়্যার পরীক্ষা, ডিজিটাল সিগনেচার, ফার্মওয়্যার চেক ইত্যাদি যা নকল মোবাইলের সাথে মিলে না ফলে ফেন ডেড হয়ে যায়।

অরিজিনাল ভিভো ফোন চেনার উপায়

মোবাইল ফোনে মোড়ক বক্স:

(Inbox Accessories) সবসময় আপনার শাওমি মোবাইল কেনার সময় যে বক্স থাকবে এবং সাথে যা যা থাকবে তা ভালো ভাবে পরীক্ষা করে নিবেন। কারণ: যদি দেখে মনে হয় কেন একটা পার্টস নকল। মনে হয় তাহলে আপনার ফেনটিও নকল হতে পারে। আপনারা হয়ত অনেক বার ফোন কেনার সময় দেখেছেন ভালো ভাবে ইনটেক করা থাকে, লেবেল করা থাকে, এভাবে ভিতরেও লেবেল করা থাকে। আপনার শাওমি অ্যাপ দ্বারা যদি কিউআর কোড স্ক্যান করেন তাহলে ডিভাইসের সাথের প্রতিটা যন্ত্র মিল থাকবে। ফোন কোনার সময় এই দিকে খেয়াল রাখবেন।

অফিসিয়াল আন অফিসিয়াল ফোনের পার্থক্য

অরিজিনাল সিম্ফনি ফোন চেনার উপায়

মোবাইলের গঠনের তুলনা:

(Physical Comparison) আপনার ফোন কেনার আগে- আপনার দরকার হলে অন্যজনের ফোন একটু ব্যবহার করে দেখতে পারেন। তাহলে আপনার হাতে নকল মোবাইল আসলে আপনি খুব সহজেই চিনতে পারবেন। কারণ নকল ফোনের বিভিন্ন জিনিস আসল ফোনের তুলনায় অনেক লো-কোয়ালিটি হয়ে থাকে। নকল ফোন ব্যবহার করলেই বোঝা যায়।

তবে আপনি যদি পাকা ফোন ব্যবহার কারী হন তাহলে নকল ফোন আপনার হতে আসলে আপনার মনে ডাউট হবে, কেমন কেমন লাগবে, সন্দেহ জাগতে পারে, তখুন পরীক্ষা করে নিবেন অথবা অন্য দোকানে দেখবেন। আসল ফোনের সফট্ নেস হবে অন্য রকম এছাড়া আপনি মোবাইলে কেনার আগে ইন্টারনেট ইউটিউব দেখে যেতে পারেন।

ফোনের দামের পার্থক্যতা:

(Compare Price) আপনাকে মোবাইলের দামের ব্যাপারটা পরিস্কার জেনে নিতে হবে মোবাইলের মার্কেট দর কেমন, চাইনা মোবাইলের মার্কেট দর কেমন। যদি মার্কেট দরের তুলনায় দাম কমে পাওয়া যায় তাহলে বুঝতে হবে মোবাইলটি নকল। আশা করছি আমার দেওয়া ইফরমেশন ব্যবহার করে আসল মোবাইলটি কিনতে পারবেন। কোন কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করতে ভূলবেন না।

আসল স্যামস্যাং ফোন চেনার উপায়

অরিজিনাল নোকিয়া ফোন চেনার উপায়

আসল হুয়াওয়ে ফোন চেনার উপায়

Leave a Reply

DMCA.com Protection Status