মোবাইলের ভাইব্রেটর সমস্যা | ভাইব্রেটর সমস্যার সমাধান

মোবাইলের ভাইব্রেটর সমস্যা সম্পর্কে তেমন কিছু জানার নেই। ভাইব্রেটর একটা কম্পনশীল মটর তবে সাধারণ মটরের মত নয়, অনেক ছোট আকারের হয়ে থাকে। ভাইব্রেটরের মাধ্যমে মোবাইল ব্যবহারকারীকে সহজেই কল বা এলার্ম বাঁজলে কম্পনের মাধ্যমে বুজতে সাহায্য করে। মোবাইলের ভাইব্রেটরের তেমন কোন সমস্যা হয়না সহজেও নষ্ট হয়না। তবে মোবাইলে সার্ভিসিং শিখতে হলে মোবাইলের প্রতিটা অংশ সম্পর্কে জানতে হবে। সেজন্য আজ মোবাইলের ভাইব্রেটর নিয়ে আলোচনা করবো।

মোবাইল ভাইব্রেটর কি?

ভাইব্রেটর হলো একটা কম্পনশীল মটর যা মোবাইলের বডির সাথে ভালোভাবে আটকানো থাকে। মোবাইলে ভাইব্রেটর ব্যবহারের কিছু কারণ রয়েছে তার মধ্যে একটা হলো মোবাইল ব্যবহারকারীগণের মোবাইলের রিংটোনের জন্য বিভিন্ন সমস্যা হয়ে থাকে সেজন্য রিংটোনের বিকল্প হিসাবে ভাইব্রেটর ব্যবহার করা হয়।

ব্যবহারকারী তার প্রয়োজন মত মোবাইল ভাইব্রেশন মোডে রাখলে রিংটোন বা এলার্ম হলে পাশের কারো কোন সমস্যা হয়না। এটা একটা ভাইব্রেটরের বড় সুবিধা মোবাইলের # বাটন চেপে ধরলে বেশির ভাগ মোবাইলে ভাইব্রেট মোড একটিভ হয়ে যায়। তবে প্রফাইল মোড থেকে ভাইব্রেট মোড সেটিং করা যায়।

চিত্র: মোবাইল ভাইব্রেটর কানেকশন

Mobile Vibrator মোবাইলের ভাইব্রেটর সমস্যা

ভাইব্রেটরের সমস্যা সমূহ:

  • ভাইব্রেট কাজ করে না।
  • ভাইব্রেটরের কানেকশন ছুটে যায়।
  • কল দিলে ভাইব্রেট বন্ধ হয়না
  • একটানা ভাইব্রেটর চলতে থাকে।
  • ভাইব্রেটরে আওয়াজ বেশি হয়।

প্রয়োজনীয় সার্ভিসিং টুলস্ সমূহ:

  • একটা স্টার স্ক্রু ড্রাইভার।
  • একটা আয়রন বা তাতাল।
  • একটু রাং ও রজন।
  • প্রয়োজনীয় ভাইব্রেটর।

ভাইব্রেটর পরিবর্তন করার নিয়ম:

প্রথম ধাপ- উপরোক্ত সমস্যা গুলোর মধ্যে কোন একটা সমস্যা থাকলে আপনাকে মোবাইলটি ধিরে ধিরে খুলে দেখতে হবে যে মোবাইলের ভাইব্রেটরের সংযোগ ঠিক আছে কি-না। কারণ অনেক সময় ভাইব্রেটরের তার ছিড়ে যায় কানেকশন ঠিক মত পাইনা, তাই আগে ভালোভাবে দেখতে হবে। সবকিছু ঠিকঠাক আছে কি-না। ঠিক থাকার পরেও যদি ভাইব্রেটর কাজ না করে তাহলে দ্বিতীয় ধাপে যেতে হবে।

দ্বিতীয় ধাপ- ভাইব্রেটরের চিত্র দেখে অবশ্যই আপনি চিনতে পারবেন কোনটা মোবাইলের ভাইব্রেটর। আপনার মোবাইলের ভাইব্রেটর যদি কাজ না করে তাহলে মার্কেট থেকে একটা নতুন ভাইব্রেটর কিনে নিয়ে আসতে হবে এবং সাবধাণতার সাথে মোবাইলটি খুলে ভাইব্রেটরের নেগেটিভ পজেটিভ ঠিক রেখে লাগিয়ে দিতে হবে।

উলট-পালট করলে সংযোগ দিলে ভাইব্রেটর মটর উলট-পালট ঘুরবে এজন্য নেগেটিভ পজেটিভ ঠিক করে লাগাতে হবে। দিয়ে সাবধানতার সাথে মোবাইলটি আবার লাগিয়ে দিতে হবে। তাহলে ভাইব্রেটর কাজ করবে তবে বেশির ভাগ সময় দেখা যায় ভাইব্রেটর ঠিক থাকে কানেকশন সমস্যা হয় তাই সবার আগে কানেকশন পরিক্ষা করে নিতে হবে। আশা করছি ভাইব্রেশন সম্পর্কে বেশি কিছু জানার দরকার হবেনা। কারণ মোবাইল ব্যবহারকারীরা ভাইব্রেশনের সমস্যাকে কোন সমস্যা মনে করেনা।

অনেক সময় দেখা যায় মোবাইলের মাদারবোর্ড শর্ট হয়ে গেলে ভাইব্রেটর সব সময় একটানা চলতে থাকে তখন ভাইব্রেটর সংযোগ কেটে দিলে কোন সমস্যা হয় না। মোবাইল চালানো যায়। এজন্য এটা কেউ সমস্যা মনে করেনা। আপনাদের বেসিক নলেজ দেওয়ার জন্য এতটুকু জানিয়ে রাখলাম। ভাইব্রেটর নিয়ে আরো কিছু জানার থাকলে আমাকে কমেন্ট করে বলতে পারেন।

Leave a Reply

DMCA.com Protection Status
error: Content is protected !!