গুগল এডসেন্স এর নিয়ম | গুগল এডসেন্স পাওয়ার নিয়ম

গুগল এডসেন্স এর নিয়ম:

গুগল এডসেন্স এর নিয়ম গুলোর মধ্যে যে গুলো করণীয় বিষয়- আজ আমি আপনাদের সে বিষয় গুলো বলবো যা ঠিক-ঠাক ভাবে করলে আপনার ওয়েবসাইট সহজেই গুগল এডসেন্সে এ এপ্রুব হবে। যেগুলো সব গুগল এডসেন্স প্রার্থীর মনের প্রশ্নে উওর যে বিষয় গুলো এডসেন্স প্রার্থীর অনেক কাজে আসবে। তাহলে চলুন প্রশ্ন সহকারে বিষয় গুলো জেনেনি। যারা নতুন এবং এডসেন্স সম্পর্কে আরো জানতে চান কেবল তাদের জন্য গুগল এডসেন্স পোস্টটি। অভিজ্ঞ ব্যাক্তিরা বিষয়টা এড়িয়ে যেতে পারেন। অথবা গুগল এডসেন্স সম্পর্কে আরো নতুন নতুন বিষয় বিস্তারিত জানতে অন্য পোস্ট গুলো পড়ে দেখতে পারেন।

প্রশ্নের উওর গুলো হলো : গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় নিয়ে :

গুগল এডসেন্স এ আবেদনের পূর্বে ওয়েবসাইট কেমন হওয়া উচিৎ ?

গুগল এডসেন্সে এ আবেদন করার পূর্বে আপনার ওয়েবসাইটে সাধারণ ডিজাইন ব্যবহার করুন। এডসেন্স এর এজন্য আপনি অস্বাভাবিক THEME TEMPLATE DESIGN ব্যবহার করবেন না। এমন থিম ব্যবহার করবেন যাতে পেইজ তাড়া তাড়ি লোডং হয়। বেশি ডিজাইন করা ওয়েবসাইট সব সময় ভারি করে মারে। অস্বাভাবিক অতিরিক্ত ভারি ওযেবসাইটে এডসেন্স পাওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। কারণ গুগল ম্যানুয়ালী আপনার ওয়েবসাইট দেখার তারপর এডসেন্স এপ্রুব করবে।

আমার ওয়েবসাইটের জন্য কোন প্লাটফর্ম বা সিএমএস করব ?

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনি যেকোন যেমন – ওয়ার্ডপ্রেস, ব্লগার, দ্রুপাল, জুমলা কিংবা অন্য যেকোন CMS- Content Management System ব্যবহার করতে পারেন তাতে গুগলের কোন যায় আসেনা। সুতরাং আপনি আপনার সুবিধা অনুযায়ী যেকোন একটি CMS বেছে নিতে পারেন। তবে গুগল এডসেন্স এর নিয়ম জানা পাবলিশারদের কাছে দরকার। ওয়ার্ডপ্রেস ও ব্লগার সবচেয়ে জনপ্রিয় CMS আমি দুটোতেই আমি কাজ করেছি।

সাইটে কি গুগলের ছবি ব্যবহার করতে পারব?

ওয়েবসাইটে আপনি গুগলের ফ্রি ছবি ছাড়া দিতে পারবেন না। ওয়েবসাইটে কপিরাইট মুক্ত ছবি ব্যবহার করুন। সব সময় ওয়েবসাইটে কপিরাইট মুক্ত ছবি ব্যবহার করুন। যদি গুগল থেকে কোন ছবি ব্যবহার করতে চান। তাহলে গুগলে ফ্রি স্টক ফটো রয়েছে তা ব্যবহার করুন। এবং ব্যবহারের পূর্বে তা সঠিক নিয়মে কাস্টমাইজ করে ব্যবহার করার চেষ্ট করুন। ফ্রি স্টক ফটো আপনি সরাসরিও ব্যবহার করতে পারেন তাতে কেনা সমস্যা হবে না।

ওয়েবসাইটে ডোমেইন বা ওয়েবসাইটের বয়স কত হতে হবে ?

গুগল এডসেন্স এ আবেদনের জন্য ডোমেন বা ওয়েবসাইটের বয়স কোন বিষয় না। আপনি একেবারে নতুন ডোমেন কিনে ব্লগ তৈরী করে ঠিক ভাবে আবেদন করলেই গুগল এডসেন্স পেয়ে যাবেন। শুধু ব্লগস্পট সাব ডোমেইনের ক্ষেত্রে সাইটের বয়স কমপক্ষে এক মাস হতে হবে। তাছাড়া আপনি যেকোন ডোমেনে আবেদন করতে পারবেন এতে কোন ধরা বাধা নেই। যেমন- .com .net .org. .com.bd. .xyz .co etc যেকোন। যেদিন আপনি ডোমেইন কিনবেন আপনি যদি সেই দিনই সব প্রয়োজনী পোস্ট করে আবেদন করতে পারেন গুগলের এডসেন্স এর সকল শর্ত পুরণ করে। তাহলে কয়েক দিনের মধ্যে গুগল এডসেন্স পেয়ে যাবেন।

ওয়েবসাইটে কেমন আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে ?

ওয়েবসাইটে ১০০% ইউনিক আর্টিকেল লিখুন এবং সঠিক ভাবে পাবলিশ করুন। যদি কোন আর্টিক্যাল কপি থাকে বা আপনি কপি করেন তাহলে গুগল এডসেন্স কখনও পাবেন না। আর্টিকেল গুলো 300/700 ওয়ার্ডের উপরে লিখার চেষ্টা করুন- পারলে আরো বড় করুন। অনেকে বলে সাইটে 20/25 টি আর্টিক্যাল প্রকাশ করার পর গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে হয়। তবে এটা সবক্ষেত্রে ঠিক না। এটা নির্ভর করে আপনি কি ধরনের সাইট নিয়ে কাজ করছেন এবং কি নিশ নিয়ে কাজ করছেন তার উপর। আপনার আর্টিকেলের কোয়ালিটি যদি ঠিক থাকলে 15 টি আর্টিক্যাল এ এডসেন্স পেয়ে যাবেন।

ওয়েবসাইটে কি ধরণে পেইজ তৈরী করতে হবে?

আপনি যদি গুগল এডসেন্স পেতে চান তাহলে আপনার ওযেবসাইটে About Us, Contact Us, Privacy Policy, Trams & Condition Disclaimer নামক পেইজ গুলো তৈরী করে পেইজের ভিতরে বিষয় গুলো ঠিক ভাবে লিখে রাখতে হবে। দরকার হলে আমার ওয়েবসাইটে পেইজের বিষয় গুলো ফলো করতে পারেন। বেঝার ক্ষেত্রে ব্যবহার করুন।

আবেদনের পূর্বে সাইট ম্যাপ সাবমিট করতে হবে?

গুগল এডসেন্স আবেদনের পূর্বে আপনার ওয়েবসাইট এবং ওয়েবসাইটের সাইট ম্যাপ অবশ্যই Google Search Console যাকে আগে Google Webmaster Tool বলা হতো তাতে আপনার ওয়েবসাইটের সাইটম্যাপ সঠিক ভাবে সাবমিট করুন। গুগল এডসেন্সে আবেদনের আগে নিশ্চিত করুন যে, আপনার ওয়েবসাইটের Sitemap ঠিক মতো সাবমিট হয়েছে কি-না।

বাংলা নাকি ইংরেজি ভাষাতে এডসেন্স দেয় ?

আগে গুগল বাংলা ভাষায় এডসেন্স দিতে না। কিন্তু কয়েক বছর থেকে গুগল মোট ৪৫ টি ভাষাতে গুগল এডসেন্স দিয়ে দিচ্ছে। কারণ এডসেন্স হলো তাদের ব্যবসার একটা সূত্র যাকে বলে ইনকাম শোর্স। এই ৪৫ টি ভাষার মধ্যে বাংলা ভাষাকেও গুগল এডসেন্স এর জন্য অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। 2 বছর আগেও বাংলায় গুগল এডসেন্স দিতো না। সুতরাং আপনি বাংলা ভাষার ব্লগ-ওয়েবসাইট করলেও এডসেন্স আবেদন করতে পারবেন।

ব্লগারের ব্লগস্পট ওয়েবসাইট এ কি গুগল এডসেন্স দেয় ?

আসলে ব্লগারের ব্লগস্পট সাইট গুগলের একটা পণ্য। আর গুগল বিভিন্ন ব্যাক্তিকে গুগলের তথ্যের জন্য ফ্রিতে ব্লগ তৈরী করার সুযোগ তৈরী করে দিয়েছে এবং এডসেন্স থেকে আর্নিং করার একটা ব্যবস্থা করে দিয়েছে। কারণ কেউ তো আর বিনা-পয়সাতে কাজ করবে না। এসব ব্লগ হলো গুগলের তথ্য ভান্ডার সূরুপ যেগুলো না থাকলে গুগলের কাছে তথ্য থাকবে না। তখন গুগলের ব্যবহার কমে যাবে। মনে করুন আপনি গুগল কেন ব্যবহার করেন? গুগলে সব তথ্য আছে বলে তাই না? আসলে এসব তথ্য কারো না করে ব্লগের তথ্য গুগল শুধু খুজেঁ বের করে দেয়- আশা করছি বুঝতে পেরেছন। এডসেন্স এর জন্য গুগল, ইউটিউব এবং ব্লগস্পট কে অগ্রাধিকার দেয়। যা গুগল এডসেন্স এর নিয়ম।

ওয়েবসাইট এ মিনিমাম কত ভিজিটর থাকতে হবে ?

গুগলের এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে আপনার টার্গেড কোন ভিজিটর লাগবে না। আপনার শুধু ভালো কনটেন্ট হলেই হবে। কারণ কনটেন্ট ভালো হলে ভিজিটর একদিন হবেই। ভালো কনটেন্ট তথ্য গুগলের সবসময় দরকার। আপনি যদি এডসেন্সে এর সকল শর্ত ১০০% পুরণ করে থাকেন এবং সাইটে যদি শূণ্য ভিজিটর থাকে তাও আপনি এডসেন্স পাবেন। সুতরাং এডসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে ভিজিটর কোন ফ্যাক্টর না।

উপরোক্ত গুগল এডসেন্স এর নিয়ম গুলো যদি আপনি ঠিক মতো অনুসরণ করেন। তাহলে এডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনার কোন প্রকার সমস্যা হবেনা। অতএব, যদি আরও যদি তথ্যের দরকার হয় তাহলে আমাকে কমেন্ট করতে পারেন। এবং ভালো লাগলে পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন। গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় নিয়ে আমার আরো কয়েকটি পোস্ট আছে সেগুলো দেখলে আশা করি গুগল এডসেন্স সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে যাবেন।

2 Comments

  1. তানভির September 27, 2019
    • admin September 28, 2019

Leave a Reply

DMCA.com Protection Status
error: Content is protected !!