গুগল এডসেন্স সাসপেন্ড হওয়ার কারণ | এডসেন্স একাউন্ট ডিজেবল

গুগল এডসেন্স একাউন্ট পাওয়ার জন্য আমরা সবাই কতই না পরিশ্রম করে থাকি। তার পর যখন গুগল এডসেন্স পেয়ে যায়, তখন আমাদের কিছু ভূলের কারণে গুগল এডসেন্স সাসপেন্ড হয়ে যায়। যা হয়ত অনেকেই বুঝতে পারেনা যে কিভাবে ক্যানো এটা হলো। আজ আমি আপনাদের গুগল এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হওয়ার বিশেষ কিছু কারন বলবো। যেগুলো থেকে দূরে থাকলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হবে না। তো চলুন জেনে নেয়া যাক কিভাবে আপনার এডসেন্স একাউন্ট টি সেইফ রাখতে পারেন।

নিজের এ্যাডে ক্লিক দেওয়া :

অনেকেই এডসেন্স একাউন্ট পাওয়ার পর বেশি আর্নিং করা জন্য  ভিন্ন ভাবে নিজেই নিজের এডে ক্লিক করে থাকে। যেমন আইপি পরিবর্তন করে, ভিপিএন ব্যবহার করে, অন্য কম্পিউটার ব্যবহার করে ইত্যাদি বিভিন্ন ভাবে গুগলের সাথে চালাকি করে নিজে নিজের এডে ক্লিক করে থাকে সুতরাং আপনি এডসেন্স পাওয়ার পর কখনোই এমন করবেন না। মনে রাখবেন গুগল আপনাকে সব সময় ফলো করে যদি ধরা খান তাহলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হয়ে যাবে যা ফেরত পাওয়া অসম্ভব।

সর্বোচ্চ এডকোড ব্যবহার :

আপনি যদি এড ইউনিট ব্যবহার করেন তাহলে কোন পেজে কনটেন্টের তুলনায় অনেক বেশি এডশো করাবেন না। প্রতিটা পেজে সর্বোচ্চ তিনটা এডশো করাতে পারেন। আপনি যদি বেশি এডশো করান তাহলে আজই তা রিমুভ করে ফেলুন। আর যদি আপনার অটো এডশো হয় তাহলে গুগল তার ইচ্ছামত এডশো করাবে তাতে কোন সমস্যা নাই।

প্রতারণা মূলক সাজসজ্জা :

আপনার ওয়েবসাইটে প্রতারণা মূলক কোন কনটেন্ট বা চোখ ধাঁধানো কোন কিছু ব্যবহার করবেন না। কারণ সে সাজসজ্জা দেখে ভিজিটর কোন সমস্যায় পড়তে পারে। যেমন স্টাইল করা কোন কিছূ যেটা ভিজিটর দেখলে ক্লিক করলে ঠকে যায়। আপনি যদি নেট ব্রাউজ করেন তাহলে এমন অনেক কিছু হয়ত বিভিন্ন ওয়েবসাইটে দেখেছেন। তারপর আপনি ক্লিক দিয়ে দেখছেন এটা কি? এমন কিছু ব্যবহার করবেন না।

কপিরাইট কনটেন্ট পোস্ট :

আপনার যদি ওয়েবসাইট থাকে আর যদি এডসেন্স  একটিভ থাকে তাহলে ভূলেও কোন কপি করা কোন কিছু আপনার সাইটে দিবেন না। যদি আপনি কোথাও থেকে কোন কনটেন্ট সেটা হতে পারে কোন লিখা, ছবি, অডিও ভিডিও ইত্যাদি নিয়ে আপনার ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেন তাহলে আপনার সাইট বিভিন্ন ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে। যেমন এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হবে, এসইও র‌্যাংকিং হারাবে ইত্যাদি।

অর্গানিক ট্রাফিক ফলো :

গুগল শুধু মাত্র অর্গানিক ট্রাফিকের ক্লিকে এডসেন্স গ্রহন করে। আপনার কোন লোকাল ট্রাফিকে আশা করলে হবে না সেজন্য আপনাকে গুগল এনালাইটিক্স ফলো করতে হবে। তাহলে আপনার ট্রাফিকের সকল তথ্য পেয়ে যাবেন এগুলো এডসেন্স গাইডলাইনে পরিস্কার লিখা আছে।

এডসেন্স কোডের পরিবর্তন :

গুগল আপনাকে যে এডসেন্স কোড দিবে আপনি যদি তার কোন রকম পরিবর্তন করেন তাহলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হবে। অনেক জন কি করে জানেন? এডসেন্স কোড কোডের বিভিন্ন পরিবর্তন করে যেমন- এডব্যানারের হাইট-ওয়েট কমবেশি করে নিজের ওয়েবসাইটে সেট করার জন্য আবার ডিসপ্লে পরিবর্তন ইত্যাদি করে থাকে ফলে তাদের এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হয়ে যায়।

এডকোডের সঠিক ব্যবহার :

গুগল আপনাকে যে এডকোড দিবে তার সঠিক ব্যবহার করতে হবে। কারণ একই একাউন্টে আপনার বিভিন্ন ওয়েবসাইট থাকতে পারে সব ওয়েবসাইটে আপনার একটা একাউন্ট থেকে এডপ্লেস করতে পারবেন। তাই বলে কোন আন এপ্রুভ খারাপ ওয়েবসাইটে আপনার একাউন্টের এডকোড প্লেস করলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হয়ে যাবে। সেজন্য আপনার কোডের খেয়াল রাখতে হবে। কোথায় কোথায় এডকোড প্লেস করছেন ইত্যাদি সব ব্যাপারে আর কাউকে এডকোড ভূলেও দিবেন না। কারণ সে যদি তার অপব্যবহার করে থাকে তাহলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড  হয়ে যাবে।

নিয়মিত পোস্ট করা :

বেশির ভাগ সংখ্যক মানুষ কি করে আপনারা হয়ত জানেন না। এডসেন্স একাউন্ট পাওয়ার পর আর কোন পোস্ট করেনা মনে করে এভাবেই চলবে আর আর্নিং হতে থাকবে। পোস্ট না করার ফলে কিছু দিনপর এডসেন্স একাউন্ট সাসপেন্ড হয়ে যায়। এজন্য এডসেন্স একাউন্ট পাওয়ার পর নিয়মিত পোস্ট করতে হবে। নিজের স্বার্থ দেখলে হবে না ভিজিটর বাড়াতে হবে।

ওয়েবসাইট ব্যবহারে সহজ করা :

আপনার ভিজিটারগন যেন সহজে আপনার ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারে সে ব্যপারে সতর্ক পরিস্কার ধারণা দেওয়া। যেমন কিছু ওয়েবসাইট আছে ভিজিটর প্রবেশ করার পর কিছুই বুঝতে পারেনা কোথায় কি আছে, কোন পেজ থেকে কোন পেজে গেলে আমার তথ্য পাবো ইত্যাদি নানা বিষয় ভিজিটর যেন সহজে বুঝতে পারে ও তার প্রয়োজনী তথ্য সে সহজে খুজে বের করতে পারে সে ব্যাপার নিশ্চিত করা। এমন হিজিবিজি থাকলে আপনার এডসেন্স সাপপেন্ড হয়ে যেতে পারে।

উত্তেজনা মূলক কনটেন্ট প্রকাশ :

আপনার ওয়েবসাইটে উওেজনা মূলক কোন কিছু প্রকাশ করা যাবে না। যেমন লিখা, ছবি, ভিডিও ইত্যাদি। আপনি এমন কিছু প্রকাশ করলেন যার ফলে কোন সংঘাত হানা-হানি হওয়ার সম্ভাবনা হতে পারে। আবার খারপ কিছু ভয়ংকর কিছু  প্রকাশ করলেন  যা সমাজের জন্য খারাপ হতে পারে গুগলের সাথে কাজ করতে হলে এসব এড়িয়ে চলতে হবে। অবৈধ কোন কিছু করবেন না তাহলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট নিরাপদ থাকবে।

পরিবারের জন্য নিরাপদ রাখা :

আপনার ওয়েবসাইট সব সময় পরিবারের জন্য নিরাপদ রাখতে হবে। যেন ফ্যামিলির সবাই ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারে, কোন খারাপ কিছূ ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা যাবেনা। আশা করি বুঝতে পেরেছেন আমি আপনাদের কি বুঝাতে চেয়েছি।

পরিশেষে বলা যায় উপরোক্ত বিষয়ে সতর্ক থাকবেন তাহলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট নিরাপদ থাকবে এবং আপনিও চিন্তামুক্ত থাকবেন। অস্বাভাবিক কোন কিছু যদি হয়ে থাকে তাহলে এডসেন্স একাউন্টের নিচের দিকে হেল্প অপশন আছে সেখালে ক্লিক দিয়ে গুগল টিমের কাছে সরাসরি হেল্প নিতে পারেন। নিয়মিত আপনার এডসেন্স একাউন্ট চেক করুন তাহলে অস্বাভাবিক কোন কিছু হলে সহজে বুঝতে পারবেন। এডসেন্স সম্পর্কে কিছু জানার থাকলে আমাকে কমেন্ট করুন। এডসেন্স সম্পর্কে অনেক স্ট্যাডি করে আপনাদের এসব তথ্য দিতে আছি দরকার হলে আরো দিবো।

সহজে এডসেন্স পাওয়ার উপায় জানতে এখানে ক্লিক করুন।

আমার ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করুন।। ফেইসবুক পেইজে লাইক করুন।। ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।। তাহলে নতুন নতুন বিভিন্ন আপডেট পেয়ে যাবেন।

6 Comments

  1. Oyster April 7, 2019
    • eMakerBD August 27, 2019
  2. Breillat September 12, 2019
    • eMakerBD September 12, 2019
  3. বাংলার মানুষ September 28, 2019
    • admin September 28, 2019

Leave a Reply

DMCA.com Protection Status
error: Content is protected !!